বুধবার ২৫শে নভেম্বর ২০২০ |

নুহাশপল্লীতে সারাদিন আয়োজন থাকবে: শাওন

বাংলাদেশ ব্যুরো |  মঙ্গলবার ১৮ই জুলাই ২০১৭ রাত ১০:৫৮:১৩
নুহাশপল্লীতে

১৯ জুলাই বাংলা কথাসাহিত্যের অন্যতম জনপ্রিয়তম লেখক হুমায়ূন আহমেদের ৫ম  মৃত্যুবার্ষিকী। দিনটিকে প্রতিবারের মতই পালন করবেন তার স্ত্রী অভিনেত্রী  মেহের আফরোজ শাওন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গালফবাংলাকে তিনি জানান, ‘প্রতি বছরের  মত এবারও হুমায়ূন আহমেদ প্রতিষ্ঠিত নূহাশ পল্লীতে সারাদিন আয়োজন থাকবেন।  তার রুহের মঙ্গল কামনায় সারাদিন কোরআন শরীফ পড়ানো হবে এবং দোয়া হবে। জোহরের  নামাজের পর একসঙ্গে কোরআনের হাফেজদের খাওয়ানো হবে। আমিও তাদের সঙ্গে খাব।’  

নুহাশপল্লী হচ্ছে প্রয়াত আহমেদের একটি বাগানবাড়ি। তার প্রথম ছেলে নুহাশের নামে তিনি এই বাড়িটির নামকরণ করেন। বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার পাশের জেলা গাজীপুরের একটি নিভৃত পল্লীতে বাড়িটির অবস্থান। বৃক্ষঅরণ্যের ছায়া মাড়িয়ে বাড়ির অবস্থান। ভেতরে সুন্দর একটি দীঘি। আছে হাজার প্রজাতির বৃক্ষও।

মেহের আফরোজ জানান, সকাল থেকে নূহাশপল্লীর আশেপাশের এতিমখানার বাচ্চারা আসবে, তারা কোনআন শরীফ পড়বে এবং সবাই মিলে মোনাজাত করবে।


এই  আয়োজনে যুক্ত হতে ঢাকা থেকে বুধবার সকালেই হুমায়ূন আহমেদের বন্ধু,  প্রিয়সঙ্গী অন্যপ্রকাশের স্বত্ত্বাধিকারী মাযহারুল ইসলাম রওয়ানা হবেন।  গালফবাংলাকে তিনি বলেন, আমি ভোরেই যাব, সারাদিন থেকে ঢাকায় ফিরব।


জানা  গেছে, ইতোমধ্যেই নূহাশ পল্লীতে পৌঁছে গেছেন মেহের আফরোজ শাওন। হুমায়ূন  আহমেদের কবরপ্রাঙ্গনটি পরিস্কার ও ধোয়ামোছার কাজটিও বুধবারেই শেষ করা  হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে প্রায় পাঁচশতাধিক মানুষের জন্য রান্না শুরু  হবে।


তবে  হুমায়ূন আহমেদের আগের স্ত্রী গুলতেকিন আহমেদ ও তার সন্তানেরা হুমায়ূন  আহমেদের কবর জিয়ারত করবে কিনা, এ নিয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। বিভিন্ন মাধ্যমে  জানার চেষ্টা করা হলেও তাদের রিচ করা সম্ভব হয়নি।


এস/

গালফবাংলায় প্রকাশিত যে কোনো খবর কপি করা অনৈতিক কাজ। এটি করা থেকে বিরত থাকুন। গালফবাংলার ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।
খবর বা বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন: editorgulfbangla@gmail.com

সংশ্লিষ্ট খবর