শুক্রবার ১৪ই আগস্ট ২০২০ |

ইতালিতে বাংলাদেশিরা হেনস্থার শিকার

 রবিবার ১৯শে জুলাই ২০২০ দুপুর ০১:০৩:৪১
ইতালিতে

বিভিন্ন দেশের গণমাধ্যমে বাংলাদেশে করোনাভাইরাস পরীক্ষা নিয়ে দুর্নীতির খবর ফলাও প্রচার পেয়েছে। এতে দেশের ভাবমূর্তি নতুন করে প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে এসব দেশে। বিশেষ করে ইতালিতে বিরূপ আচরণের শিকার হচ্ছেন প্রবাসীরা।

বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদনে এমন চিত্র উঠে এসেছে। কয়েকজন প্রবাসী নিজেদের অস্বস্তিকর অভিজ্ঞতা তুলে ধরেছেন।

ইতালিতে বসবাসরত একজন বাংলাদেশি ইমিগ্রেশন কনসালট্যান্ট এ কে জামান বলেন, ইতালির সংবাদপত্রে প্রকাশিত খবরাখবরে বাংলাদেশিদের দায়ী করা হচ্ছে ইতালিতে নতুন করে করোনাভাইরাস নিয়ে আসার জন্য।

‘বলা হচ্ছে, প্রবাসী বাংলাদেশি যারা ফেরত এসেছে, তারাই ইতালিতে করোনাভাইরাস নিয়ে এসেছে’ যোগ করেন তিনি। জামান বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশিরা যখন চলাফেরা করি, বেশিরভাগ সময় দেখা যায় যে, অন্যরা আমাদের দেখে পাশ কাটিয়ে যাচ্ছে। এমনকি আগে যেসব বার বা রেস্তোরাঁয় আমরা যেতাম, সেখানে লোকে যেন আমাদের দেখে ইতস্তত বোধ করে’ যোগ করেন তিনি।

ইতালির ফ্রিউলি ভেনেজিয়ে জুলিয়া প্রদেশের ত্রিয়েস্ত শহরে থাকেন আইরিন পারভীন খান। তিনি জানান, ইতালিতে করোনাভাইরাসের সেকেন্ড ওয়েভের জন্য বাংলাদেশিদের দায়ী করা হচ্ছে। আইরিন খান বলেন, ‘ইতালিতে যখন প্রথম করোনাভাইরাস ছড়িয়েছিল, তখন চীনাদের সঙ্গে যেরকম ব্যবহার করা হতো, এখন বাংলাদেশিরা সেই একই ধরনের ব্যবহারের শিকার হচ্ছে।’

তিনি জানান, তার শহরের কাছাকাছি এক শহরে ৩৬ জনের করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে, এদের প্রায় সবাই বাংলাদেশি। এরপর এখন বাংলাদেশিদের ফেরত পাঠানোর দাবি পর্যন্ত তুলছে অনেকে।

করোনাভাইরাস নিয়ে কেলেঙ্কারির খবর ইতালির পত্রিকায় ফলাও প্রচার পাওয়ার পর বাংলাদেশিদের ওপর হামলা এবং দুর্ব্যবহারের কয়েকটি ঘটনা উল্লেখ করেন এই প্রবাসী। তিনি বলেন, ‘মিলানে এক বাংলাদেশি ফুল বিক্রেতাকে ধাক্কা দিয়ে পানিতে ফেলে দেওয়া হয়েছে। এটা যদি কোনো ইতালিয়ানের সঙ্গে করা হতো, এতক্ষণে পুলিশ অনেক কিছুই করতো। কিন্তু এক্ষেত্রে কিছুই করা হয়নি।’

আইরিন খান বলেন, ‘আমার পরিচিত এক বাংলাদেশি নারী সুপারশপে গিয়েছিলেন কেনাকাটা করতে। সেখানে তিনি সোশ্যাল ডিস্ট্যান্সিং মেনে লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন। কিন্তু তারপরও তিনি দুর্ব্যবহারের শিকার হন।’

তিনি বলেন, “ইতালিয়ান সংবাদপত্রগুলোর ওয়েবসাইটে খবরের নিচে যেসব মন্তব্য থাকে, সেগুলো পড়লেই বোঝা যায়, বাংলাদেশিদের বিরুদ্ধে ঘৃণা-বিদ্বেষ কতটা বেড়েছে।’

এদিকে গত ৭ জুলাই ঢাকা থেকে যাওয়া যাত্রীদের মধ্যে ‘উল্লেখযোগ্য সংখ্যকের’ করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ায় এক সপ্তাহের জন্য বাংলাদেশ থেকে সব ধরনের ফ্লাইট বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছিল ইতালি কর্তৃপক্ষ৷ পাশাপাশি কয়েক সপ্তাহে সেখানে পৌঁছানো পাঁচ থেকে ছয়শ বাংলাদেশীকে খুঁজে বের করে পরীক্ষা করারও উদ্যোগ নেয় দেশটির স্বাস্থ্য দফতর৷ এরমধ্যে ইতালির রাজধানী রোম যে অঞ্চলে, সেই লাৎসিও কর্তৃপক্ষ প্রবাসী বাংলাদেশীদের ঢালাও করোনাভাইরাস পরীক্ষা করানোর উদ্যোগ নেয়৷

রয়টার্স এর আগে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছিল, ওই অঞ্চলে নতুন করে আক্রান্তদের মধ্যে ১০ জন বাংলাদেশি৷ এই প্রেক্ষাপটে ৮ জুলাই কাতার এয়ারওয়েজের দু’টি ফ্লাইটে দোহা থেকে রোম ও মিলানে যাওয়া ১৬৫ বাংলাদেশিকে ঢুকতে না দিয়ে ফেরত পাঠায় দেশটির সরকার৷

পরদিন ঢাকা থেকে যাওয়া যাত্রীদের মধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ার প্রেক্ষাপটে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত বাংলাদেশ থেকে যাওয়া সবার প্রবেশ নিষিদ্ধ করে ইতালি৷ যদিও পরে বাংলাদেশিদের জন্য ইতালিতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার সময়সীমা কমিয়ে এনেছে দেশটির সরকার।

নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ১ আগস্ট থেকে বাংলাদেশিরা ইতালিতে প্রবেশ করতে পারবেন বলে জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) বাংলাদেশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে দেওয়া এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এমনটি জানানো হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়, বাংলাদেশসহ আরো ১২টি দেশের যাত্রীরা ইতালিতে ৩১ জুলাই পর্যন্ত প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও বাংলাদেশে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দাবি করে, করোনা নেগেটিভের ভুয়া সার্টিফিকেট দিয়ে কোনো বাংলাদেশি ইতালিতে প্রবেশ করেননি ।


এর আগে বুধবার ইতালি সরকার একটি নোটিশ টু এয়ারমেন বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। সেখানে বলা হয়, বাংলাদেশসহ ১৩টি দেশে ১৪ দিন অবস্থান করেছে এমন কেউ ৩১ জুলাই পর্যন্ত ইতালিতে প্রবেশ করতে পারবে না। এই নোটিশ পরিবর্তিত না হলে ১ আগস্ট থেকে বাংলাদেশিরা ইতালিতে ঢুকতে পারবে।’

নোটিশটি বাংলাদেশসহ মোট ১৩টি দেশের জন্য প্রযোজ্য। অন্যদেশগুলো হচ্ছে আর্মেনিয়া, বাহরাইন, ব্রাজিল, বসনিয়া হার্জেগোভিনা, চিলি, কুয়েত, উত্তর মেসিডোনিয়া, মলদোভা, ওমান, পানামা, পেরু ও ডমিনিকান রিপাবলিক।

ফেসবুকে গালফবাংলার সাথে থাকতে এখানে ক্লিক করে লাইক দিন

মোবাইলে সবার আগে খবর পেতে হলে এখানে ক্লিক করুন

গালফবাংলায় প্রকাশিত যে কোনো খবর কপি করা অনৈতিক কাজ। এটি করা থেকে বিরত থাকুন। গালফবাংলার ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।
খবর বা বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন: editorgulfbangla@gmail.com

সংশ্লিষ্ট খবর