বুধবার ২১শে অক্টোবর ২০২০ |

রিটার্ন পারমিট নিয়ে জরুরি প্রশ্ন ও উত্তর

তামীম রায়হান |  মঙ্গলবার ২৮শে জুলাই ২০২০ সকাল ০৮:১৭:৩৫

ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে কাতারের জনজীবন। সর্বত্র স্বাভাবিকতা ফিরিয়ে আনার পাশাপাশি কাতারের বাইরে আটকে থাকা হাজারো বিদেশি কর্মীর ফিরে আসার প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে ১ আগস্ট থেকে। তাই সম্প্রতি ঘোষিত কাতার সরকারের নিয়ম অনুসারে, ১ আগস্ট থেকে কাতারে ফিরতে পারবেন বিভিন্ন দেশে আটকে থাকা প্রবাসীরা। 

তবে ফেরার আগে কর্মীর রিটার্ন পারমিটের জন্য আবেদন করতে হবে। 

এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় কিছু প্রশ্ন ও সেগুলোর উত্তর পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হচ্ছে গালফ বাংলার পক্ষ থেকে-

রিটার্ন পারমিট কী?

যেসব কাতার প্রবাসী বর্তমানে কাতারের বাইরে আছেন এবং করোনার কারণে কাতারে ফিরতে পারছেন না, তাদের কাতারে ফিরে আসার জন্য একটি সাময়িক প্রক্রিয়ার নাম রিটার্ন পারমিট আবেদন। সরকারের সিদ্ধান্ত অনুসারে, যারা কাতারে বিভিন্ন সরকারি খাতে কর্মরত, তারা আগে ফিরে আসার সুযোগ পাবেন। এরপর ধারাবাহিকভাবে অন্য কর্মীরাও ফিরে আসতে পারবেন।

রিটার্ন পারমিটের আবেদন কে করবে?

এটি করতে হবে যার যার কোম্পানিকে। এমনকি যারা সরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন এবং বর্তমানে কাতারের বাইরে আটকে আছেন, তাদেরও ফিরে আসার জন্য এই নিয়ম প্রযোজ্য। সেক্ষেত্রে ওই সরকারি প্রতিষ্ঠান কর্মীদের জন্য আবেদন করবে।

কবে থেকে আবেদন করা যাবে?

১ আগস্ট থেকে এই আবেদন করা যাবে।

রিটার্ন পারমিটের ফি কত?

রিটার্ন পারমিটে কোনো ফি নেই।

রিটার্ন পারমিটের আবেদন কোথায় করতে হবে?

এই আবেদন করতে হবে কাতার পোর্টাল নামের ওয়েবসাইটে (https://portal.www.gov.qa)। তবে যেহেতু প্রবাসী কর্মীর ফিরে আসার জন্য কোম্পানির পক্ষ থেকে আবেদন করতে হবে, তাই আবেদনের প্রক্রিয়া ও ওয়েবসাইট নিয়ে কর্মীর চিন্তার কিছু নেই। বরং কর্মীদের উচিত, তারা তাদের কোম্পানি বা অফিসের সাথে এ ব্যাপারে যোগাযোগ অব্যাহত রাখবে।

কিভাবে আবেদন করতে হবে

কাতার পোর্টালে গিয়ে প্রথমে কোম্পানি বা অফিসের একাউন্ট তৈরি করতে হবে। এরপর আবেদনের বাটনে ক্লিক করে কাতারের বাইরে থাকা কর্মীর প্রয়োজনীয় তথ্য পাসপোর্ট ও আইডি অনুসারে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। অনুমতি পাওয়ার পর তা ইমেইলে কর্মীর কাছে পাঠানো হবে। কোনো তথ্য ভুল থাকলে বাতিল হতে পারে রিটার্ন পারমিট।

রিটার্ন পারমিটের মেয়াদ কতদিন?

অনুমোদন পাওয়ার পর কর্মীর জন্য যে রিটার্ন পারমিট ইস্যু করা হবে, সেটির মেয়াদ হবে এক মাস। কোনো কারণে যদি কর্মী এক মাসের মধ্যে আসতে না পারেন, তবে আবারও আবেদন করা যাবে।

পারমিট পাওয়ার পর কাতারে আসার সময় আর কী কী লাগবে?

অনুমতিপ্রাপ্ত কর্মী যখন কাতারে ফিরে আসবেন, তখন তার সাথে থাকতে হবে-

  • পাসপোর্ট ও কাতারি আইডি
  • রিটার্ন পারমিট
  • হোটেল কোয়ারেন্টিনের শপথনামা ও স্বাক্ষর
  • কোয়ারেন্টিন হোটেল বুকিং
  • মোবাইলে এহতেরাজ অ্যাপ

রিটার্ন পারমিট ছাড়া কি আর কাতারে আসা যাবে না?

এটি একটি সাময়িক নিয়ম। তাই আশা করা যাচ্চে, সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি সময়ের পর যারা আসতে চান, তাদের বেলায় এই নিয়ম প্রযোজ্য নাও হতে পারে।

প্রবাসী কর্মীর পরিবারের জন্য আবেদন কে করবে?

কোনো কোম্পানি যখন কর্মীর রিটার্ন পারমিটের জন্য আবেদন করবে, তখন ওই কর্মী আসার অনুমোদন পেলে তাঁর পরিবারের যেসব সদস্য (স্ত্রী ও ছেলে মেয়ে) কাতার প্রবাসী, তারাও ফিরে আসার অনুমতি পাবে।

হোটেল বুকিং কি রিটার্ন পারমিটের আগে নাকি পরে?

হোটেলে বুকিং করতে হলে রিটার্ন পারমিট লাগবে। তাই আগে রিটার্ন পারমিট সংগ্রহ করতে হবে। এরপর হোটেলে বুকিং দিতে হবে। 

রিটার্ন ভিসা কী?

কাতারের বাইরে যাদের ৬ মাস পেরিয়ে গেছে, তাদের ফিরে আসার জন্য রিটার্ন ভিসার আবেদন করতে হয়। এটি কোম্পানির পক্ষ থেকে করতে হয় এবং এটির জন্য ৫০০ রিয়াল ফি দিতে হয়। এই নিয়ম সবসময়ের জন্য, নতুন কিছু নয়।

তাই কারও যদি কাতারের বাইরে ৬ মাস পার হয়ে থাকে, তবে তাঁর ফিরে আসার জন্য রিটার্ন পারমিটের পাশাপাশি রিটার্ন ভিসাও লাগবে।

কাতারের আরও গুরুত্বপূর্ণ খবর

গালফবাংলায় প্রকাশিত যে কোনো খবর কপি করা অনৈতিক কাজ। এটি করা থেকে বিরত থাকুন। গালফবাংলার ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।
খবর বা বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন: editorgulfbangla@gmail.com

কাতার,দোহা,কাতারের খবর,দোহার খবর,Qatar,Doha,Qatar Bangla News,Doha News,প্রবাসী,প্রবাস,কাতারের নিউজ
তামীম রায়হান

তামীম রায়হান

কাতার প্রবাসী লেখক ও সাংবাদিক

সংশ্লিষ্ট খবর